Mutual Fund: কখন বিক্রি করবেন

মিউচুয়াল ফান্ড রিডেম্পশন নিয়ে আমরা আপনাকে এই ভিডিওতে বেশ কিছু উপায় বলব যাতে আপনি সহজেই তা করতে পারবেন।

রিমা দীর্ঘদিন ধরে মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগ করছেন। শেয়ার বাজারের ওঠানামা বিবেচনা করে তিনি এখন তাঁর বিনিয়োগ তুলে নেওয়ার কথা ভাবছেন। শুধু রিমাই নয় অন্য অনেকেই বাজারেই এই অস্থিরতা দেখে, তাঁদের মিউচুয়াল ফান্ডের লগ্নি তুলে নেওয়ার কথা ভাবতে শুরু করেছেন। কিন্তু এই চিন্তা কি সঠিক? তো চলুন আজ জেনে নিই কখন আপনার ফান্ড রিডিম করা উচিত আর কখন নয়?

প্রথমত, মিউচুয়াল ফান্ড থেকে টাকা তুলে নেওয়ার প্রক্রিয়াটি বোঝা যাক। এই টাকা তুলতে আপনাকে ফর্ম পূরণ করতে হবে না কিংবা আপনার অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানির অফিসে যেতে হবে না। তবে ডিজিটাইজেশনের পর টাকা তোলার প্রক্রিয়া বেশ সহজ হয়ে গিয়েছে। এখন, আপনি শুধুমাত্র একটি ক্লিকের মাধ্যমে আপনার মিউচুয়াল ফান্ড থেকে টাকা তুলতে পারবেন।

মিউচুয়াল ফান্ড রিডেম্পশন নিয়ে আমরা আপনাকে এই ভিডিওতে বেশ কিছু উপায় বলব যাতে আপনি সহজেই তা করতে পারবেন।
এর মধ্যে প্রথম এবং সবচেয়ে সহজ উপায় হল AMC-এর মাধ্যমে টাকা তোলা। আজকাল, বেশিরভাগ বিনিয়োগকারী মিউচুয়াল ফান্ড হাউজের মাধ্যমে বা ডিস্ট্রিবিউটরের মাধ্যমে সরাসরি মিউচুয়াল ফান্ড বিক্রি করে থাকেন।

সব AMC তাদের ওয়েবসাইটে মিউচুয়াল ফান্ড কেনা-বেচা করার সুবিধা প্রদান করে থাকে। সব মিউচুয়াল ফান্ড হাউজই এই সুবিধা দিয়ে থাকে। এর ফলে আপনি সহজেই আপনার লগ্নি রিডিম করতে পারবেন। আর আপনি যদি ডিম্যাট এবং ট্রেডিং অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে মিউচুয়াল ফান্ডে লগ্নি করে থাকেন, আপনি যে কোনও সময় আপনার ইউনিট বিক্রি করতে পারবেন। আর টাকা সরাসরি আপনার অ্যাকাউন্টে জমা হয়ে যাবে।

আপনি একটি রেজিস্ট্রার এবং ট্রান্সফার এজেন্টের মাধ্যমে আপনার মিউচুয়াল ফান্ডের বিনিয়োগও ভাঙাতে পারেন। এর জন্য, আপনাকে KFintech এবং CAMS-এর মতো RTA-এর সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে। RTA অনলাইন ফর্ম ডাউনলোড করে তা পূরণ করা বা AMC-এর নিকটতম শাখা থেকে কেনা মিউচুয়াল ফান্ড রিডিম করার ক্ষেত্রে আপনাকে সহায়তা করবে।

মনে রাখবেন যে AMC বা ব্রোকারের মাধ্যমে মিউচুয়াল ফান্ড রিডিম করার প্রক্রিয়ায় পার্থক্য থাকতে পারে। মিউচুয়াল ফান্ড রিডিম করার সঠিক তথ্যের জন্য, AMC-এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট দেখুন। কোনো বিভ্রান্তি থাকলে সংস্থার কাস্টমার কেয়ারের সঙ্গে যোগাযোগ করুন।

এখন প্রশ্ন হল আপনি কখন মিউচুয়াল ফান্ড রিডিম করবেন?

প্রথমত, যখন আপনার অর্থের প্রয়োজন হবে এবং অন্য কোথাও থেকে টাকার ব্যবস্থা করতে না পারেন।
দ্বিতীয়ত, যদি আপনার লগ্নির কৌশল পরিবর্তন করতে হয় এবং তৃতীয়ত, যদি আপনার রিটার্ন ভাল না হয়। এই ধরনের পরিস্থিতিগুলিতে আপনি আপনার মিউচুয়াল ফান্ড বিক্রি করতে পারেন।

Investography-এর প্রতিষ্ঠাতা শ্বেতা জৈন এই প্রসঙ্গে বলেন, মিউচুয়াল ফান্ড রিডিম করার আগে নিজেকে কিছু প্রশ্ন করুন। আপনি যে লক্ষ্যে বিনিয়োগ করেছেন তা কি আপনি অর্জন করেছেন? যদি উত্তর হ্যাঁ হয়, আপনি বিনিয়োগ রিডিম করতে পারেন। একইভাবে, আপনি কি বাজারের অস্থিরতার কারণে আপনার বিনিয়োগ তুলে নিচ্ছেন? এর উত্তর হ্যাঁ হলে টাকা তুলবেন না। বরং আপনার আর্থিক লক্ষ্যগুলিতে ফোকাস করুন। বাজারের অস্থিরতা স্থায়ী নয়, তাই আপনার লগ্নি তুলে না নেওয়াই উচিত।

আপনিও যদি আপনার বিনিয়োগ তুলে নিতে চান, তাহলে কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় মাথায় রাখতে হবে। সেগুলি হল-
– লগ্নির কার্যকারিতা এবং টাকা তোলার কারণগুলি সম্পর্কে চিন্তা করুন
– বাজারের অস্থিরতার মধ্যে হুট করে সিদ্ধান্ত নেবেন না। আপনার রিটার্নের উপর আস্থা রাখুন
– রিডিম করার পর আপনার অ্যাকাউন্টে টাকা আসতে 1-2 দিন সময় লাগে
– ঋণ নিলে কিংবা লিকুইড ফান্ড ভাঙালে আরও দ্রুত আপনি হাতে টাকা পাবেন
– এক্সিট লোডের মতো চার্জ থেকে সতর্ক থাকুন, কারণ প্রতিটি ফান্ডের ক্ষেত্রে তা বিভিন্ন হয়

এই ধরনের পরিস্থিতিতে, আপনার দীর্ঘমেয়াদী লক্ষ্যগুলির উপর ভিত্তি করে মিউচুয়াল ফান্ডগুলি ভাঙানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত। এই ক্ষেত্রে প্রাপ্ত অর্থের উপর কর লাগু হওয়ার বিষয়টিও মাথায় রাখবেন। জরুরি ভিত্তিতে অর্থের প্রয়োজনে সাধারণ মানুষ ভাল প্রকল্পে করা বিনিয়োগও বিক্রি করে দেন। আপনি যদি আপনার মিউচুয়াল ফান্ড বিক্রি করে টাকা তোলার প্রয়োজন থাকে, তাহলে নিজে সিদ্ধান্ত না নিয়ে একজন বিশেষজ্ঞের কাছ থেকে পরামর্শ নিয়ে তবেই এই পথে পা বাড়ান।

Published: April 8, 2024, 13:20 IST

পার্সোনাল ফাইনান্স বিষয়ের সর্বশেষ আপডেটের জন্য ডাউনলোড করুন Money9 App